Bkash Interest rate 2021 | বিকাশ ইন্টারেস্ট খোলা এবং বন্ধ

আপনি যদি বিকাশ একাউন্টে টাকা জমান, তাহলে টাকা নিরাপদে রাখার পাশাপাশি বিকাশ ইন্টারেস্ট কিংবা টাকা জমানোর উপরে Bkash Interest rate উপভোগ করতে পারবেন

তবে, আমাদের মধ্যে অনেকেই এ সম্পর্কে জানেন না যে বিকাশে আপনি যদি টাকা জমানো তাহলে এই টাকা জমানোর ক্ষেত্রে ইন্টারেস্টের হার কত পারসেন্ট হতে পারে।

এছাড়াও বছরান্তে আপনি টাকা জমানোর ক্ষেত্রে কত টাকা লাভ করতে পারবেন, সেই সম্পর্কে আমরা অনেকেই জানিনা।

আজকের এই আর্টিকেলের মূলত আলোচনা করা হবে, আপনি যদি বিকাশে টাকা জমান তাহলে টাকা জমানো ক্ষেত্রে বিকাশ কত শতাংশ লাভ বা ইন্টারেস্ট দিবে সে Bkash Interest rate সম্পর্কে।

Bkash Interest rate কত?

বিকাশ ইন্টারেস্ট রেট নির্ভর করবে আপনার জমানো টাকার উপরে। তবুও Bkash এভারেজ ইন্টারেস্টেড হিসেবে বছরান্তে আপনি ৪% ইন্টারেস্ট পারবেন।

মোট কথা হল, আপনি কত টাকা বিকাশ একাউন্টে জমা রাখবেন সেই টাকার পরিমাপের উপরে আপনার ইন্টারেস্ট রেট নির্ভর করবে।

তাহলে এবার দেখে নেয়া যাক, টাকার পরিমাপের উপরে সর্বমোট ইন্টারেস্ট রেট কত টাকা হবে।

বিকাশ ইন্টারেস্ট রেট

  • বিকাশ একাউন্টে আপনি যদি ১০০০ টাকা থেকে শুরু করে ৫০০০ টাকা জমা রাখেন তাহলে ইন্টারেস্ট হবে ১.৫ %।
  • ৫০০১ টাকা থেকে শুরু করে ১৫০০০ টাকা অবধি জমা রাখলে বছরান্তে ইন্টারেস্ট রেট হবে ২%।
  • ১৫০০১ টাকা থেকে শুরু করে ৫০,০০০ টাকা যদি জমা রাখেন তাহলে ইন্টারেস্ট হবে ৩%।
  • এবং ৫০,০০০ টাকার বা তার চেয়ে বেশি আপনি যদি একাউন্টে জমা রাখেন, তাহলে ইন্টারেস্ট রেট সর্বোচ্চ অর্থাৎ ৪% পাবেন।

আর এই ইন্টারেস্টেড মূলত প্রতিবছর দুইবার আপনি পাবেন।

তবে এই সমস্ত ইন্টারেস্ট রেট, যে কোন বিকাশ অ্যাকাউন্ট ব্যবহারকারীর জন্য প্রযোজ্য হবে না। এক্ষেত্রে আপনাকে বিকাশের যে নিয়ম রয়েছে সেই নিয়ম মেনে চলতে হবে তাহলে আপনি ইন্টারেস্ট পাবেন।

অর্থাৎ BKash একাউন্ট থেকে আপনি যদি ইন্টারেস্ট পেতে চান, তাহলে বিকাশের যে নিয়মাবলী রয়েছে সেই নিয়মাবলীর আওতাধীনে আপনার একাউন্ট থাকতে হবে তাহলেই আপনি ইন্টারেস্ট পাবেন।

বিকাশ ইন্টারেস্ট পাওয়ার নিয়ম

  • মাসে বিকাশ একাউন্ট থেকে যে কোন প্রকারের কমপক্ষে ২টি লেনদেন করতে হবে।
  • মাসজুড়ে প্রায় প্রতিদিন শেষে আপনার বিকাশ একাউন্টের ব্যালেন্স ১০০০ টাকা থাকতে হবে। ১০০০ টাকার কম থাকলে আপনি এই সেবা উপভোগ করতে পারবেন না।
  • মাসজুড়ে আপনার একাউন্টে যে ব্যালেন্স থাকবে, সেই ব্যালেন্সের গড় হিসাব করে ইন্টারেস্ট এর পরিমাণ নির্ধারণ করা হবে।
  • সরকারি নিয়ম অনুযায়ী ব্যয় এবং ট্যাক্স কর্তন অনুসারে আপনার একাউন্টে সর্বমোট বছরে ২ বার ইন্টারেস্ট দেয়া হবে।
  • এছাড়াও সব সময় আপনার বিকাশ একাউন্ট একটিভ থাকতে হবে, অন্যথায় আপনি ইন্টারেস্ট পাবেন না।

আর এটি হলো, আপনার টাকা জমানোর উপরে ইন্টারেস্ট পাওয়ার যে গুরুত্বপূর্ণ শর্তাবলী রয়েছে সেই শর্তাবলী।

ইন্টারেস্ট বন্ধ করার উপায়

এছাড়াও আমরা যারা রেলিজিয়াস কিংবা ধর্মপ্রাণ মানুষ, তাদের অনেকেরই এই সুদ ভিত্তিক জিনিসগুলো পছন্দের নয়। কারণ এগুলো হারাম এবং এগুলো গ্রহণ করা পরিপূর্ণ ভাবে নিষিদ্ধ।

সেজন্য আপনি যদি এগুলো না নিতে চান কিংবা এই ইন্টারেস্ট বন্ধ করে দিতে চান, যাতে করে আপনি দুনিয়া ও আখিরাতে লাভবান হতে পারেন সেক্ষেত্রে ও বিকাশ আপনাকে একটি সুযোগ দিচ্ছে।

Bkash একাউন্ট থেকে ইন্টারেস্ট সম্পূর্ণরূপে বন্ধ করার জন্য নিম্নলিখিত প্রসেস ফলো করুন।

  • এ কাজটি করার জন্য প্রথমে বিকাশ হেল্পলাইন নাম্বার অর্থাৎ ১৬২৪৭ নাম্বারে কল করুন।
  • নাম্বারে কল করার পরে প্রথমত আপনার ভাষা নির্বাচন করুন, আপনি যদি বাংলায় কথা বলতে চান তাহলে ১ চাপুন এবং ইংরেজিতে কথা বলতে চাইলে ২ চাপুন।
  • এবার ইন্টারনেট সংক্রান্ত তথ্য জেনে নেয়ার জন্য ১ চাপুন এবং ইন্টারেস্ট বন্ধ করে দেয়ার জন্য ১ চাপুন।

সর্বশেষে, আপনার অনুরোধ যদি বিকাশ কর্তৃপক্ষের কাছে গৃহীত হয় এবং এটি বন্ধ করে দেয়া হয় তাহলে কনফার্মেশন এসএমএস এর মাধ্যমে আপনাকে এ বিষয়ে জানানো হবে।

আর এভাবেই চাইলে আপনি বিকাশ একাউন্ট থেকে ইন্টারেস্ট কিংবা যে সুদের হিসাব রয়েছে সেই সুদের হিসাব বন্ধ করতে পারবেন এবং একটি ইসলামিক অ্যাকাউন্ট পরিচালনা করতে পারবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top