নগদ একাউন্ট এর মুনাফা Nagad Interest Explained

আমাদের মধ্যে এরকম অনেকেই রয়েছেন যারা কিনা নগদ একাউন্ট এর মুনাফা সম্পর্কে জেনে নিতে চান, যাতে করে নগদ একাউন্ট থেকে বেশি পরিমাণে লাভ করতে পারেন।

আর আপনিও যদি নগদ একাউন্ট এর মুনাফা সম্পর্কে জেনে নিতে চান এবং নগদ একাউন্টে মুনাফা পাওয়ার শর্ত এবং একাউন্ট খোলা বন্ধ রিলেটেড তথ্য জেনে নিতে চান তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি দেখে নিতে পারেন।

এই আর্টিকেলের মূলত আলোচনা করা হবে নগদ একাউন্টে মুনাফা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য সম্পর্কে যা অবশ্যই আপনার প্রয়োজনে আসবে।

নগদ একাউন্টে মুনাফা পাওয়ার শর্ত কি?

আপনি যদি নগদ একাউন্টে মুনাফা পেতে চান, তাহলে আপনাকে মূলত কিছু শর্ত মেনে চলতে হবে যাতে করে আপনি মুনাফা করতে পারেন।

নিচে মূলত নগদ একাউন্ট থেকে মুনাফা পাওয়ার কিছু শর্ত নিচে তুলে ধরা হলো যেগুলো অবশ্যই আপনাকে মেনে চলতে হবে অন্যথায় আপনি মনে করবেন না।

  • মুনাফা পেতে হলে গ্রাহকের অ্যাকাউন্টটি ফুল প্রোফাইল থাকতে হবে এবং একাউন্টে মুনাফা অপশনটি ওপেন করা থাকতে হবে।
  • আপনি যদি নগদ একাউন্ট এর ইসলামিক প্রফাইল ব্যবহার করে থাকেন, তাহলে নগদ একাউন্ট থেকে কোনো রকমের মুনাফা পাবেন না
  • মাসজুড়ে, প্রতিদিন শেষে ন্যূনতম ১০০০ টাকা একাউন্টে ব্যালেন্স রাখতে হবে। যদি কোন মাসে কোন একদিন ১০০০ টাকার কম ব্যালেন্স আপনার একাউন্টে থাকে তাহলে আপনি মুনাফা পাবেন না।
  • মুনাফার টাকা প্রদানের সময় গ্রাহকের মুনাফা অপশনটি যদি অফ থাকে থাকলে গ্রাহক মুনাফা পাবেন না।
  • মাসে ন্যূনতম দুইবার আর্থিক লেনদেন করতে হবে। যেকোনো ধরনের পেমেন্ট অথবা মোবাইল রিচার্জ করতে হবে।
  • মূলত প্রত্যেক মাসের সর্ব শেষ দিনে আপনার একাউন্ট ব্যালেন্স কত টাকা রয়েছে, সেই টাকার উপর নির্ভর করে আপনার মুনাফা ধার্য্য করা হবে।
  • আপনাকে যে মুনাফা দেয়া হবে সেই মুনাফা দেয়ার পূর্বে সরকারি ভ্যাট এবং ট্যাক্স রয়েছে, সেই সেগুলো কর্তন করে আপনাকে মুনাফা দেয়া হবে৷
  • গ্রাহক ত্রৈমাসিক ভিত্তিতে, তিন মাসে অন্তত একবার হলেও মুনাফা ভোগ করবেন।

মুনাফা সেবা চালু ও বন্ধ করার পদ্ধতি

আপনি যদি মুনাফার টাকা না পেতে চান তাহলে আপনি চাইলে মুনাফা বন্ধ করে দিতে পারবেন আর মুনাফা বন্ধ করে দেয়ার জন্য যে স্টেপ ফলো করতে হবে সেগুলো সম্পর্কে নিচের মেনশন করা হলো।

  • এই কাজটি করার জন্য প্রথমত নগদ অ্যাপ এ প্রবেশ।
  • নগদ এপে প্রবেশ করার পরে “আমার নগদ” সিলেক্ট করুন।
  • মুনাফা পেতে চাই অপশনটি সিলেক্ট করে।
  • তারপরে আপনি যদি মুনাফা পেতে চান তাহলে “হ্যা” সিলেক্ট করুন এবং মুনাফা যদি পেতে না চান তাহলে “না” সিলেক্ট করুন।

এভাবেই মূলত আপনি চাইলে মুনাফা একাউন্ট খুলতে পারবেন এবং বন্ধ করতে পারবেন।

ইউএসএসডি কোড ডায়াল করে মুনাফা সেবা চালু এবং বন্ধ করার নিয়ম

এছাড়াও আপনি যদি ইউএসএসডি কোড ডায়াল করার মাধ্যমে মুনাফা সেবা চালু এবং বন্ধ করতে চান, তাহলে নিম্নলিখিত স্টেপ ফলো করুন।

  • এই কাজটি করার জন্য প্রথমে ডায়াল করুন *১৬৭#
  • তারপরে আপনার নগদ একাউন্টের যে মেনু রয়েছে, সেই মেনু সেকশন থেকে “My Nagad” সিলেক্ট করার জন্য 7 চাপুন।
  • তারপরে “Update Profit Status” সিলেক্ট করার জন্য 5 চাপুন।
  • একদম সর্বশেষ যে আপনি যদি একাউন্টে প্রফিট ওপেন করতে চান তাহলে “Yes” এবং যদি বন্ধ করতে চান তাহলে “No” সিলেক্ট করে দিন।

আর এভাবেই মূলত আপনি চাইলে ইউএসএসডি কোড ডায়াল করার মাধ্যমে নগদ একাউন্ট এর যে মুনাফা অপশন রয়েছে, সেটা চালু এবং বন্ধ করতে পারবেন।

নগদ একাউন্ট মুনাফার হার

এছাড়াও আপনি যদি নগদ একাউন্টে ব্যবহার করে মুনাফা উপভোগ করতে চান, তাহলে আপনি যে পরিমান মুনাফা উপভোগ করতে পারবেন, সেটির একটি চার্ট নিচে তুলে ধরা হলো।

ব্যালেন্স/স্ল্যাব (টাকা)                   বাৎসরিক হার
০ – ৯৯৯.৯৯                             ০.০%
১,০০০ – ৫,০০০                             ১.৫%
৫,০০০.০১ – ১৫,০০০                             ২.০%
১৫,০০০.০১ – ১৫০,০০০                            ৩.০%
১৫০,০০০ থেকে এর ঊর্ধ্বে*                            ৭.৫%

*সর্বাধিক ব্যালেন্স সীমা পর্যন্ত, যা বর্তমানে ৩০০,০০০ টাকা

উপরে উল্লেখিত চার্টে স্পষ্ট বর্ণনা করা রয়েছে আপনি কত টাকা জমা রাখলে কত টাকা মুনাফা পেতে পারেন।

আর এটি হলো মূলত নগদ একাউন্টে মুনাফা একাউন্ট রিলেটেড যে তথ্য রয়েছে, সে মুনাফা একাউন্ট তথ্য সম্পর্কে বিস্তারিত।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top